Kayifamily Episode

Kurulus Osman Episode 147 in Bangla

Kurulus Osman Episode 147 in Bangla

কুরুলুস উসমান ভলিউম ১৪৬ কেমন লাগলো? ১০ এ কত মার্ক দিবেন ভলিউম ১৪৬ কে? অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন, সিরিজ রেটিং এর দিক থেকে এ সপ্তাহের সেরা পর্ব ছিল ভলিউম ১৪৬। এক কথায় অনবদ্য একটি পর্ব ছিল, ইয়াকুব বের বিশ্বাসঘাতকতা উন্মোচন, সবার সামনে ইয়াকুব বেকে কঠিন অপমান, ইলখানাত সম্রাজ্যের আমির গোর্কুলো খানের শিরশ্ছেদ, উরহান বেকে নিয়ে উসমান বের পরিকল্পনা, আলাউদ্দিন বের বুদ্ধিমত্তা, রহস্যজনক ভাবে ইয়াকুব বেকে তীরের আঘাত, নতুন আগত এলসিন হাতুন কি মঙ্গল গুপ্তচর নাকি উসমান বের পক্ষে? সব মিলিয়ে ভলিউম ১৪৬ আগুন একটি পর্ব ছিল।

আজকের ভিডিওতে আমরা কুরুলুস উসমান ভলিউম ১৪৭ এর প্রথম ট্রেইলার বিশ্লেষণ করার চেষ্টা করবো, ইনশাআল্লাহ, নতুন মঙ্গল কমান্ডার তাজউদ্দীন নয়ান ও বাইজেন্টাইন বাহিনীর আগমন হতে যাচ্ছে, কতটা ভয়ংকর হবে তারা? তাজউদ্দীন নয়ান আসলে কে? কি তার পরিচয়? কে ইয়াকুব বেকে তীর মারলো? ইয়াকুব বে কি মারা যাবে? এলচিন হাতুনের পরিচয় কি? সে কি ঐতিহাসিক চরিত্র?

উরহান বের সাথে কি তার হুলোফিরার আগে বিয়ে হবে? জার্মিয়ান দের সাথে কি কায়ীদের শক্রতা আবার বৃদ্ধি পাবে নাকি ইয়াকুব বে উসমান বের আনুগত্য করবে? কারাজালাসুন কে বন্দী করেছেন উসমান বে,,তাকে কি হত্যা করবেন? গনজা হাতুনের বিশ্বাসঘাতকতা প্রকাশ পেয়েছে, আলাউদ্দিন এর সাথে কি গনজার বিয়ে হবে? সব প্রশ্নের উত্তর জানবো আজকের এই ভিডিওতে, সুতরাং ভিডিওটি শেষ পর্যন্ত দেখতে থাকুন।

ভিডিওর শুরুতেই জেরকুতায় আল্প কি নিয়ে একটু আলোচনা করবো, যদিও জেরকুতায় আল্প কে বিশ্বাসঘাতক সাজিয়ে উসমান বে ইয়াকুব বের আসল মুখোস উন্মোচন করেছেন, এরপরও জেরকুতায় আল্প কে যখন বিশ্বাসঘাতক হিসেবে বাজারে সবার সামনে হাজির করা হলো,

সবাই জেরকুতায় আল্পের গায়ে বিশ্বাসঘাতক বলে আঘাত করতেছিল, তখন সত্যিই চোখে পানি চলে আসছিলো, রাষ্ট্রের সার্থে এই বীর সেনারা কত জুলুম অত্যাচার আর মানহানির শিকার হয়েছে, তবুও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ও আল্লাহর দ্বীন কে পরাজিত হতে দেননি৷ আগামী পর্ব থেকে জেরকুতায় আল্প কে আবার নতুন রুপে দেখা যাবে, আগের জেরকুতায় আল্পের রুপ খুব শীগ্রই দেখবো আশা করি, এবং ইয়াকুব বে থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হবে জেরকুতায় আল্প।

ট্রেইলারের শুরুতেই দেখা যায়, উসমান বে বলছেন একদিকে তাজউদ্দীন নয়ান অন্যদিকে রোমান বাহিনী, এছাড়াও গত পর্বের শেষে নতুন আগত এলচিন হাতুন উসমান বেকে তথ্য দেন তাজউদ্দীন নয়ান তার বাহিনী নিয়ে কায়ীদের ধ্বংস করতে আসছেন,,এবং পর্বের মাঝে আমির গোর্কুলো খান নিজেই বলেছেন তাজউদ্দীন নয়ান খুব শীগ্রই আসবে, সুতরাং এটা স্পষ্ট যে তাজউদ্দীন নয়ান আমির গোর্কুলো খান এবং কারাজালাসুন থেকে বেশী শক্তিশালী হবেন,

আমির গোর্কুলো খান ও কারাজালাসুন উসমান বেকে পরাজিত করতে ব্যর্থ হয়েছেন বলেই তাজউদ্দীন নয়ান এর আগমন হতে যাচ্ছে, তাজউদ্দীন নয়ান হচ্ছে ইলখানাতে সুলতান ওলকায়তুর আপন ভাগ্নে, অনেকের মতে তাজউদ্দীন নয়ান হচ্ছে একটি ঐতিহাসিক চরিত্র, আবার অনেকের মতে তাজউদ্দীন নয়ান এর কোন অস্তিত ছিলো না ইতিহাসে, তবে তাজউদ্দীন নয়ান কে পাঠানো হয়েছে রাজকুমারী মারিয়া কে উদ্ধার করার জন্য, সে এসে জানতে পারবে আমির গোর্কুলো খানকে হত্যা করা হয়েছে, সুতরাং সে আরো ভয়ংকর হয়ে উঠবেন, আগামী ট্রেইলার এবং আগামী পর্বেই তাজউদ্দীন নয়ান এর আগমন দেখানো হবে৷

এছাড়াও উসমান বে ট্রেইলারে রোমান তথা বাইজেন্টাইন বাহিনীর কথাও উল্লেখ করেছেন, সুতরাং খুব শীগ্রই বাইজেন্টাইন বাহিনীর একজন ভয়ংকর কমান্ডার এর আগমন হতে যাচ্ছে, আমরা এর আগে অনেক ভিডিওতে বলেছি, উসমানী সম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর উসমান বের একমাত্র শক্র ছিল বাইজেন্টাইন সম্রাজ্য, তাদের সাথেই উসমান বেকে মোকাবেলা করতে হয়েছে, বাইজেন্টাইন সম্রাজ্যকে অস্তিত্বহীন করে উসমানী সম্রাজ্য উঠে দাড়িয়েছিল,

সুতরাং এখন যেহতু উসমানী সম্রাজ্য ঘোষনা হয়ে গিয়েছে কিন্তু বাইজেন্টাইন বাহিনীর কোন আদিপত্য দেখানো হয়নি,,সুতরাং আগামী পর্বে বাইজেন্টাইন বাহিনীর আগমন হলে কুরুলুস উসমান সিরিজটি আরো জমজমাট হয়ে উঠবে, এবং ইতিহাসের সাথে একটু মিল খুঁজে পাওয়া যাবে, কুরুলুস উসমান শুটিং স্পটে দুজন নতুন অভিনেতা যোগ দিয়েছেন, ধারনা করা হচ্ছে একজন বাইজেন্টাইন কমান্ডার চরিত্রে অভিনয় করবেন এবং অন্যজন নতুন আগত এলচিন হাতুনের ভাই চরিত্রে অভিনয় করবেন৷ সুতরাং ইতিহাসের সাথে মিল রেখে আমরাও খুব শীগ্রই বাইজেন্টাইন বাহিনী কে দেখতে চাই৷

এবার আলোচনা করবো, কে ইয়াকুব বেকে তীর মারলো? ইয়াকুব বে কি মারা যাবে? গত পর্বে আমরা দেখেছি যখন উসমান বে সবার সামনে একের পর এক ইয়াকুব বের আসল রুপ ফাঁস করতেছিলো, তখন ইয়াকুব বেকে তীর মেরে আহত করা হয়, দৃশ্যে দেখা যায় একজন হাতুন এই তীরটি মেরেছে, কিন্তু হাতুনের মুখ দেখানো হয়নি, তবে অনেকটা ধারনা করা যাচ্ছে এটা নতুন আগত এলচিন হাতুন হবেন, কারন সেই ইয়েনিশেহের দূর্গের খোঁজে এখানে এসেছে, কিন্তু সে কেন ইয়াকুব বের উপর হামলা করলো সেটা স্পষ্ট নয়,

তবে ভলিউম ১৪৭ এর ট্রেইলারে দেখা যায় উসমান বে বলছেন যারা ইয়াকুব বের উপর হামলা চালিয়েছে তারা মঙ্গল বাহিনীর লোক ছিল, তারা ছদ্মবেশে এই আক্রমণ করেছে যাতে কায়ী ও জার্মিয়ানদের মাঝে ঝগড়া বেড়ে যায়, উসমান বের এই কথাতে বুঝা যাচ্ছে ইয়াকুব বের উপর হামলা এলচিন হাতুন করেননি, সে ইয়েনিশেহের গিয়েছিল উসমান বের সাক্ষাৎ পেতে কিন্তু ইয়েনিশেহেরে থাকা মঙ্গল গুপ্তচর ইয়াকুব বের উপর হামলা করবে যাতে তাদের মধ্যে দন্ধ বেড়ে যায়, কিন্তু ঘটনাক্রমে এলচিন হাতুন তখন সেখানে উপস্থিত ছিল, ফলে সে ভয়ে পালিয়ে যায়।

এছাড়াও দেখা যায় ইয়াকুব বে নিঃশ্বাস বন্ধ করে দিয়েছে, তাহলে সে কি মারা যাবে? না, সে মারা যাবে না, ইতিহাসে ইয়াকুব বের মৃত্যু এমন ভাবে হওয়ার কোন তথ্য নেই, এছাড়াও ইয়াকুব বেকে এখন সিরিজ থেকে বিদায়ের কোন তথ্যও নেই, তবে ইয়াকুব বে সুস্থ হয়ে সে উসমান বের প্রতি ধীরে ধীরে অনুগত্য হবে, এবং পর্বের শেষে দেখানো হয় সাদেত হাতুন বালা হাতুন কে আক্রমণ করেছে, কিন্তু এটা সাদেত হাতুনের কল্পনা হবে৷ সুতরাং আগামী পর্বে আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য এমন দৃশ্য স্পষ্ট করা হয়নি৷

এবার একটু নতুন আগত এলচিন হাতুনের পরিচয় নিয়ে আলোচনা করি, এলচিন হাতুনকে উসমান বে যখন পরিচয় জিজ্ঞেসা করে, সে বলে আমি এলচিন হাতুন, হায়মে হাতুনের বংশধর, সুতরাং বুঝা যাচ্ছে আর্তুগ্রুল গাজীর মা হায়মে হাতুনের বংশধর হচ্ছে এই এলচিন হাতুন, আবার অনেকে তাকে আর্তুগ্রুল গাজীর ভাই গুন্দারো বের মেয়ে বা আত্মীয় বলে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন, অনেকে বলছেন এলচিন হাতুন মঙ্গল বাহিনীর গুপ্তচর হবেন, কিন্তু নির্ভরযোগ্য তথ্য মতে সে মঙ্গল গুপ্তচর হবে না, সে হবেন উরহান বের স্ত্রী, আর ইতিহাসে উরহান বে কিন্তু ৪ টি বিয়ে করেছেন,

সুতরাং হুলোফিরা তার প্রথম স্ত্রী হবেন, এবার অনেকে বলবেন এলসিন হাতুন নামে উরহান বের কোন স্ত্রী ছিলো না, নির্ভরযোগ্য তথ্য মতে এলসিন হবে এই হাতুনের ছদ্মবেশী নাম, তার আসল নাম হবে এফতানদিস হাতুন, সুতরাং আশা করা যায় এটা একটি ঐতিহাসিক চরিত্র হতে যাচ্ছে, কোন কাল্পনিক চরিত্র নয়, ট্রেইলারে দেখা যায়, উরহান ও এলচিন হাতুনের মাঝে একটু কাছাকাছি গভীরতা তৈরি হয়েছে, এটা দেখে হুলোফিরা চলে গিয়েছে, যত যাই হোক, হুলোফিরা হাতুনের সাথে উরহান বের প্রথম বিয়ে হবে, এছাড়াও গত পর্বে হুলোফিরা হাতুন মুসলিম হতে রাজি হয়েছেন, ইতিহাসে উরহান বে মাত্র ১৩ বছর বয়সে হুলোফিরা কে বিয়ে করেছিলেন৷

এবার আলোচনা করবো, কারাজালাসুন কে বন্দি করেছেন উসমান বে, তাকে কি হত্যা করবেন? আমির গোর্কুলো খান মৃত্যুর পর কারাজালাসুন একা, তাজউদ্দীন নয়ান আসার খবর পেয়েছেন উসমান বে, ট্রেইলারে দেখা যায় উসমান বে কারাজালাসুন কে বলছেন যতক্ষণ কথা না বলবে অত্যাচার চলবে, কি তথ্য জানার জন্য উসমান বে তাকে চাপ দিচ্ছেন? তাজউদ্দীন নয়ান কে আটকানোর পরিকল্পনা ও তার তথ্য সম্পর্কে জানতে উসমান বে কারাজালাসুন কে অত্যাচার করবেন, এছাড়াও কুরুলুস উসমান ভলিউম ১৪৬ এ উরহান বের চরিত্রটি কেমন লাগলো?

ইয়েনিশেহের দূর্গ গোর্কুলো খান থেকে রক্ষা করেছেন উরহান বে, এছাড়াও বাবা উসমান বের সাথে সুক্ষ পরিকল্পনা করে নিখুত ভাবে আমির গোর্কুলো খানকে ফাঁদে ফেলেছেন উরহান বে, এবং পর্বের শেষ মূহুর্তের গুরুত্বপূর্ণ সময় গুলোতে বাবার পাশে দেখা গিয়েছে উরহান বেকে, এবং পুরো পর্বে উসমান বের আরেক ছেলে আলাউদ্দিন বের বুদ্ধিমত্তার প্রমান দেখা গিয়েছে, মেহমেদ বের পরিকল্পনা নষ্ট করে রক্ষা করেছেন জেরকুতায় আল্প কে, সব মিলিয়ে গত পর্বে উসমান বে, উরহান ও আলাউদ্দিন ছিল পুরাই আগুন৷

এবার আলোচনা করবো, আলাউদ্দিন বে ও গনজা হাতুনের বিষয় নিয়ে, ট্রেইলারে দেখা যায় আলাউদ্দিন বে ও গনজা হাতুনের মাঝে ঝগড়া চলছে, কারন আলাউদ্দিন বে জেনে গিয়েছে গনজা হাতুন তার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, কিন্তু এই ঝগড়া স্থায়ী হবে না, খুব শীগ্রই আলাউদ্দিন বে বুঝতে পারবে গনজা হাতুন ইচ্ছাকৃত ভাবে এটা করিনি, তাকে বাধ্য করা হয়েছে, এবং আলাউদ্দিন বে ও গনজা হাতুনের মাঝে বিয়ে হবে, এই সম্পর্কটাই হয়তো কায়ী ও জার্মিয়ানদের মাঝে মিলন ঘটাবে৷ more

Kurulus Osman Episode 147 in Bangla

Watch in English

Server-1

Server-2

Server-3

Download HD

Kurulus Osman with English Subtitles by Kayifamily UK: kayifamilyuk.com website is a subtitles platform. We are making historical, Islamic, and family series and movies in English and Bangla. We are also posting series reviews, biographies, and historical content, as well as the lives of the actors and actresses. You can watch those for free.

Watch More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button